Menu

রবীন্দ্রনাথকে দিয়েই বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত শুরু

আজ থেকে রাত জাগা শুরু হবে। আজ থেকে ভোরের শুভ্রতা গায়ে মেখেই শহরের অসংখ্য মানুষ ঘরে ফিরবে। আজ শুরু হচ্ছে পাঁচ দিনব্যাপী উচ্চাঙ্গসংগীত উত্সব। ঢাকার আর্মি স্টেডিয়াম টানা পঞ্চমবারের মতো বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত এ উত্সবে শাস্ত্রীয় নৃত্য, গীত ও বাদ্যে মুখর হয়ে উঠবে। বিশ্বখ্যাত শিল্পী ছাড়াও বাংলাদেশ ও ভারতের উদীয়মান শিল্পীরাও এ উত্সবে অংশগ্রহণ করবেন। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে ভোর অবধি চলবে এ অনুষ্ঠান। এ বছরের উত্সবটি উত্সর্গ করা হয়েছে প্রয়াত সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের স্মৃতির উদ্দেশে।
আজ সন্ধ্যা ৭টায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রধান অতিথি থেকে বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উত্সব উদ্বোধন করবেন। বিশেষ অতিথি থাকবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

শুরুতেই দলীয় নৃত্য ‘রবি করোজ্জ্বল’ পরিবেশন করবেন শর্মিলা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তার দল নৃত্যনন্দন। নানা নৃত্যশৈলীর ধারা রবীন্দ্রনাথে এসে মিলেছিল যে মোহনায়, তার উত্স ও পরম্পরা দিয়ে গাথা হয়েছে উদ্বোধনী সন্ধ্যার এ পরিবেশনা।
এর পর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের কিছু আনুষ্ঠানিকতা। তার পর ‘যুগলবন্দি পরিবেশন করবেন প্রবীণ গোদখিণ্ডি (বাঁশি) ও রাতিশ টাগডে (বেহালা)। প্রবীণ গোদখিণ্ডির সংগীতশিক্ষা শুরু হয় তার পিতা বংশীবাদক পণ্ডিত ভেঙ্কটেশ গোদখিণ্ডির তত্ত্বাবধানে। ২০১০ সালে আর্জেন্টিনার ওয়ার্ল্ড ফুড ফেস্টিভ্যালসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তিনি বাঁশি বাজিয়েছেন। তার সহশিল্পী রাতিশ তাগডে মূলত তবলার ওপর নিজের একটা দখল এনেছেন। শাস্ত্রীয় সংগীতে অবদানের জন্য রাতিশ ন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ও এশিয়া-প্যাসিফিক এন্টারপ্রেনিউরশিপ অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন ২০১৫ সালে। গিরিজা দেবীর খেয়াল পরিবেশন যারা শুনেছেন, তারাই জানেন তিনি কতটা দক্ষ এ কাজে। সোনিয়া ও বেনারস ঘরানার প্রবাদপ্রতিম শিল্পী তিনি। ছয় দশকের বর্ণাঢ্য সংগীতজীবনে তিনি বহু পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। এবারের উত্সবেও ‘খেয়াল’ পরিবেশন করবেন গিরিজা দেবী। সরোদের সুর যাদের হূদয়ে দোলা দেয়, তারা চলে আসতে পারেন আজকের অনুষ্ঠানে। কেননা এখানেই যে সরোদ পরিবেশন করবেন ওস্তাদ আশিষ খান। বাংলাদেশের সঙ্গে এ শিল্পীর পারিবারিক সম্পর্ক আছে। ভারতীয় সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী আলাউদ্দিন খাঁর দৌহিত্র ও আলি আকবর খাঁর পুত্র হলেন আশিষ খান। এ শিল্পী তালিম নিয়েছেন তার বাবা ও ফুফু অন্নপূর্ণা দেবীর কাছে। জন বারহাম, জর্জ হ্যারিসন, রিঙ্গো স্টার, এরিক ক্ল্যাপটনসহ বিশ্বের খ্যাতনামা শিল্পীদের গানের সঙ্গেও তিনি সরোদ বাজিয়েছেন। এর পর ‘খেয়াল’ পরিবেশন করবেন অশ্বিনী ভিদে দেশপাণ্ডে ও পণ্ডিত সঞ্জীব অভয়ঙ্কর। প্রথম দিনের শেষ পরিবেশনা থাকবে ড. এল সুব্রামানিয়ামের বেহালা।